ঢাকা, বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪
ফিরে দেখা ২০২১

ক্রিকেটকে বিদায় বললেন যারা 

প্রকাশনার সময়: ৩০ ডিসেম্বর ২০২১, ০৫:১০

শেষ হওয়ার পথে আরেকটি বছর-২০২১। ক্রিকেটঙ্গনে কেমন গেল বিদায়ী বছরটা? আজ থাকছে চলতি বছর ২২ গজকে বিদায় জানানো শীর্ষ পাঁচ ক্রিকেটারকে নিয়েই বিশেষ প্রতিবেদন_

১. ডেল স্টেইন

প্রায় ১৬ বছরের দীর্ঘ ক্যারিয়ার শেষে ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছেন ডেল স্টেইন। আইসিসি টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ে দীর্ঘতম সময়ের (২৬৩ সপ্তাহ) জন্য পেসারদের তালিকায় শীর্ষস্থানে ছিলেন এই প্রোটিয়া গতি তারকা।

দেশের হয়ে ৯৩ টেস্ট, ১৯৫ ওয়ানডে আর ৪৭ টি-টোয়েন্টি খেলেছেন স্টেইন। ৪৩৯ উইকেট নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে সর্বোচ্চ টেস্ট উইকেটশিকারী তিনি। ওয়ানডেতে নিয়েছেন ১৯৬ উইকেট। আর ২০ ওভারের সংস্করণে উইকেটসংখ্যা ৬৪।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলেছেন নিজের শেষ ম্যাচ। আগস্টের শেষ দিনে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জানান, ২২ গজের লড়াইয়ে ইতি টানছেন তিনি।

২. থিসারা পেরেরা

গত মে মাসে হুট করেই অবসরের ঘোষণা দেন শ্রীলঙ্কার অলরাউন্ডার থিসারা পেরেরা। মূলত তরুণ ক্রিকেটারদের সুযোগ করে দিতেই অবসরের ঘোষণা দেন তিনি। লঙ্কানদের হয়ে ২০১৪ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতেন পেরেরা।

২০০৯ সালে ওয়ানডে দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের পথচলা শুরু হয় থিসারার। এই সংস্করণে ১৬৬ ম্যাচে উইকেট সংখ্যা ১৭৫টি। এক সেঞ্চুরি ও ১০ ফিফটিতে রান করেন দুই হাজার ৩৩৮। ৮৪ টি-টোয়েন্টিতে উইকেট ৫১টি, রান এক হাজার ১০১। এক যুগের ক্যারিয়ারে টেস্ট খেলেছেন মোটে ছয়টি।

৩. হরভজন সিং

ভারতের ইতিহাসে অন্যতম সেরা স্পিনার, ২৩ বছরের লম্বা ক্যারিয়ার শেষে এই বছরেই থামেন হরভজন সিং। ১৯৯৮ সালে ভারতের জার্সিতে অভিষেক ঘটেছিল এই ক্রিকেটারের। ভারতের হয়ে প্রথম বোলার হিসেবে টেস্টে হ্যাটট্রিকের রেকর্ডটা তার।

হরভজনকে মনে রাখতে শুধু ২০০১ সালে অস্ট্রেলিয়া সিরিজটাই যথেষ্ট। সেবার ঘরের মাঠে স্টিভ ওয়াহর দলের বিরুদ্ধে ৩ ম্যাচে ৩২ উইকেট নিয়েছিলেন ভাজ্জি। ২০০৭ এ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ এবং ২০১১ তে ওয়ানডে বিশ্বকাপজয়ী দলের অবিচ্ছেদ্য অংশ ছিলেন হরভজন।

ভারতের হয়ে ১০৩ টেস্টে ৪১৭, ২৩৬ ওয়ানডেতে ২৬৯ উইকেট এবং ২৮ টি-টোয়েন্টিতে ২৫ উইকেট নিয়েছেন এই স্পিনার। ব্যাট হাতে টেস্টে রয়েছে দুটি শতক-ও। গত ২৪ ডিসেম্বর অবসরের ঘোষণা দেন হরভজন।

৪. রায়ান টেন ডেসকাট এই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বিদায় বলেছেন রায়ান টেন ডেসকাটও। নেদারল্যান্ডের হয়ে লম্বা সময় লড়ে যাওয়া এই ক্রিকেটারের শেষটা অবশ্য ভালো হয়নি। তিন ম্যাচের তিনটিতেই হেরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে তার দল বাদ পড়ে প্রথম পর্বেই। পারফর্ম করতে ব্যর্থ ডেসকাট নিজেও।

২০০৬ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পা রাখা এই ক্রিকেটার ৩৩ ওয়ানডে খেলে ৫ সেঞ্চুরিতে রান করেন ১ হাজার ৫৪১, ব্যাটিং গড় ৬৭। উইকেট ৫৫টি। টি-টোয়েন্টিতে ২৪ ম্যাচে ৫৩৩ রান ৪১.০০ গড় ও ১৩২.৯১ স্ট্রাইক রেটে। উইকেট ১৩টি।

৫. ডোয়াইন ব্রাভো এ বছরে দ্বিতীয় ও শেষবারের মতো ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছেন ব্রাভো। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার কাছে হেরে সেমিফাইনালে ওঠার আশা ভেস্তে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের। এরপরই আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় বলেন এই অলরাউন্ডার।

২০০৪ সালে দেশের হয়ে অভিষেক, ২০১৮ তে বিদায় জানিয়েছিলেন। অবশ্য পরের বছরই টি-টোয়েন্টিতে ফেরার আগ্রহ প্রকাশ করেন। দেশের হয়ে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জয়ের পাশাপাশি জিতেছেন দুটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ।

১৬৪ ওয়ানডে খেলা ব্রাভো দুই সেঞ্চুরিতে ২ হাজার ৯৬৮ রানের পাশাপাশি উইকেট নিয়েছেন ১৯৯টি। ৪০ টেস্টে ৩ সেঞ্চুরিতে রান ২ হাজার ২০০ রান, উইকেট ৮৬টি। আর ৯১ টি-টোয়েন্টিতে রান এক হাজার ২৫৫। উইকেট ৭৮টি।

নয়া শতাব্দী/এমআর

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আমার এলাকার সংবাদ