ঢাকা, শনিবার, ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯, ১২ রজব ১৪৪৪

অগ্ন্যুৎপাতের ওপর মূত্রত্যাগ!

প্রকাশনার সময়: ১৩ জানুয়ারি ২০২৩, ১৮:৩৬

আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতের ওপর প্রস্রাব করার অভিযোগ। সামাজিক মাধ্যমে সে ছবি ছড়িয়ে পড়তেই সমালোচনার ঝড় উঠেছে। হাওয়াই দ্বীপের কিলাউইয়ে আগ্নেয়গিরিতে এক ব্যক্তির এমন আচরণের পর ক্ষুব্ধ স্থানীয় বাসিন্দারাও।

ইনস্টাগ্রামে ছড়িয়ে পড়া একটি ছবিতে দেখা যায়, কিলাউইয়ে আগ্নেয়গিরিতে প্রস্রাব করছেন এক ব্যক্তি। ছবিটিতে যাকে উল্লেখ করা হয়েছিল, তিনি নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট মুছে ফেলেছেন বলেও দাবি করা হয়েছে। ভাইরাল ছবির সত্যতা যাচাই করেনি আনন্দবাজার অনলাইন।

অভিযুক্ত ব্যক্তি স্থানীয় বাসিন্দা না বিদেশি পর্যটক, তা স্পষ্ট হয়নি। হাওয়াইয়ের জনৈক সমাজকর্মী জানান, দ্বীপের বিভিন্ন অংশের সঙ্গে স্থানীয়দের আত্মিক যোগ রয়েছে। বিদেশ থেকে যারা সেখানে বেড়াতে যান, তারা এই সংযোগের মর্ম বোঝেন না। সংশ্লিষ্ট আগ্নেয়গিরিটির সঙ্গেও হাওয়াইয়ের মানুষের সম্পর্ক অত্যন্ত নিবিড়। যে কারণে তার ওপর প্রস্রাবের ঘটনায় গর্জে উঠেছেন স্থানীয়দের অনেকে।

শনিবার ইনস্টাগ্রামে বিতর্কিত ছবিটি পোস্ট করা হয়। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের দাবি— ছবিতে যাকে অপকর্ম করতে দেখা গিয়েছিল, তিনি আলখাল্লা পরে ছিলেন। পিঠে ছিল একটি ব্যাগ। পেছন দিক থেকে ছবিটি তোলা হয়েছিল। ছবিতে দেখা গিয়েছিল, ওই ব্যক্তির প্যান্ট নিচের দিকে নামানো। হাওয়াই ন্যাশনাল পার্ক একটি বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, ইনস্টাগ্রামে এ ধরনের পোস্টে তারা অসন্তুষ্ট। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘একটি উন্নত এলাকায় এভাবে প্রস্রাব করা একান্তই অনুচিত। সেই সঙ্গে এ ঘটনা সংশ্লিষ্ট আগ্নেয়গিরির সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যকেও ধূলিসাৎ করেছে।’

হাওয়াইয়ের স্থানীয় মানুষের বিশ্বাস অনুযায়ী, ‘এই আগ্নেয়গিরির আধ্যাত্মিক তাৎপর্য রয়েছে। এখানে বাস করেন আগুন এবং আগ্নেয়গিরির দেবী পেলে। ফলে বিতর্কিত ছবিটি দেখে ক্ষুব্ধ হাওয়াইবাসী।’ এনডিটিভি ও আনন্দবাজার।

নয়া শতাব্দী/জেআই

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আমার এলাকার সংবাদ