ঢাকা, সোমবার, ২৯ মে ২০২৩, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০, ৮ জিলকদ ১৪৪৪

ঘি দিয়ে হোক ত্বকের যত্ন

প্রকাশনার সময়: ২১ মে ২০২৩, ২২:০৪

প্রাচীনকাল থেকে ঘি রান্না থেকে শুরু করে রুপচর্চা প্রতিটি জায়গায় ব্যবহার হয়ে আসছে। খাটি ঘি যেমন রান্নার স্বাদ বাড়ায় তেমনি ত্বক উজ্জ্বল ও মোলায়েম করতেও সাহায্য করে।

অনেকেই চিন্তা করে ঘি দিয়ে রুপচর্চা করলে ত্বক থেকে বেশি তে বের হয়। আবার অনেকেই ভাবে ঘি ত্বকে র‍্যাশ বাড়িয়ে দেয়। কিন্তু আদতেই কি ঘি ত্বকের ক্ষতি করে চলুন জেনে নেই।

১. ঘিয়ের মধ্যে ভিটামিন এ, ডি, ই এবং কে রয়েছে। উচ্চ মাত্রা ফ্যাটি অ্যাসিডে সমৃদ্ধ ঘি। তাছাড়া এই উপাদানের মধ্যে ভরপুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে। এই সব উপাদানগুলো ত্বকের যত্ন নিতে সাহায্য করে।

২. ঘি ত্বককে হাইড্রেটেড রাখতে সাহায্য করে। অন্যদিকে, ঘি ত্বককে ফ্রি র‍্যাডিকেল এবং অক্সিডেটিভ ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করতে সাহায্য করে। তাই নিয়মিত ত্বকের উপর ঘি মালিশ করলে ত্বক যেমন নরম হয়ে ওঠে, তেমনই জেল্লা বাড়তে থাকে।

৩. ঘিয়ের মধ্যে ময়েশ্চারাইজিং উপাদান রয়েছে। দিনের শেষে এক চামচ ঘি দিয়ে রূপচর্চা সেরে ফেলুন। রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে ত্বকের উপর ঘি লাগিয়ে হালকা হাতে মালিশ করুন। ত্বক সম্পূর্ণ ঘি শুষে নেওয়া পর্যন্ত মালিশ করবেন।

৪. রাতে নাইট ক্রিম হিসেবে ঘি ব্যবহার করলে আপনি ত্বকের বার্ধক্যও রুখে দিতে পারবেন। চোখের কোণে সূক্ষ্মরেখা, কপালে বলিরেখা প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে ঘি। ঘিয়ের মধ্যে ভিটামিন এ, ডি এবং ই রয়েছে, যা ত্বকের যৌবন ধরে রাখতে সাহায্য করে।

৫. রাতে শুধু নাইট ক্রিম হিসেবে ঘি ব্যবহার করবেন, তা নয়। চোখের চারপাশে কালি দূর করতেও আপনি ঘি ব্যবহার করতে পারেন। ঘুমোতে যাওয়ার আগে আঙুলে ঘি নিয়ে চোখের চারপাশে মালিশ করুন। এতে ধীরে ধীরে ডার্ক সার্কেলের সমস্যা দূর হয়ে যাবে।

৬. এছাড়া আপনি ফুট ক্রিম হিসেবেও ব্যবহার করতে পারেন ঘি। রাতে বিছানায় যাওয়ার আগে পায়ের পাতা ও গোড়ালিতে ভাল করে ঘি মালিশ করে নিন। এতে পা ফাটার সমস্যা এড়ানো যাবে। একইভাবে, ঠোঁটের উপর ঘি লাগাতে পারেন। এতে ঠোঁট ফাটবে না।

নয়া শতাব্দী/এসএম/জেডএম

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আমার এলাকার সংবাদ