ঢাকা, শনিবার, ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯, ১২ রজব ১৪৪৪

কেমব্রিজে বাংলাদেশি-আমেরিকান শিক্ষার্থী নিহত: বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ

প্রকাশনার সময়: ১০ জানুয়ারি ২০২৩, ১৬:১৩

আমেরিকার কেমব্রিজের বোস্টন শহরে পুলিশের গুলিতে বাংলাদেশি-আমেরিকান শিক্ষার্থীর নিহতের বিচার দাবিতে কয়েকশ’ মানুষ বিক্ষোভ করেছেন।

গত সপ্তাহের এই ঘটনায় ক্ষোভ ও হতাশা প্রকাশ করে স্থানীয় সময় সোমবার (৯ জানুয়ারি) তারা বিচারের দাবিতে বিক্ষোভে নামেন।

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সাঈদ ফয়সাল (২০) ম্যাসাচুসেটস বোস্টন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। গত ৪ জানুয়ারি এক পুলিশ অফিসারের ছোঁড়া গুলিতে তিনি নিহত হন।

পুলিশের ভাষ্যমতে, নিহত ফয়সালের হাতে কুকরি ছিল। তিনি পুলিশদের দিকে এগিয়ে আসছিলেন। তাকে থামাতে ব্যর্থ হলে তার দিকে গুলি ছোঁড়া হয়।

উল্লেখ্য, কুকরি হল একটি ধরনের ছোট ছুরি,যার প্রচলন দক্ষিণ এশিয়ায় (নেপালে)।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব নিউ ইংল্যান্ড আয়োজিত কেমব্রিজ সিটি হলের বাইরে সমাবেশে বিক্ষোভকারীরা ‘জাস্টিস ফর ফয়সাল’ ও ‘ফয়সালের বুলেট নয়, সাহায্যের প্রয়োজন’ সম্বলিত প্ল্যাকার্ড নিয়ে বিক্ষোভ জানান।

এ সময় তার বন্ধু ও শিক্ষকরা তার বন্ধুত্ব, ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি ও বুদ্ধিমত্তার কথা স্মরণ করেন।

এ ঘটনায় একটি স্বাধীন বিচার বিভাগীয় তদন্ত শুরু হয়েছে। এই তদন্তের ফলাফল মিডলসেক্স জেলার অ্যাটর্নির অফিসে পাঠানো হবে। অভিযোগগুলোর নিশ্চয়তার বিষয় সেখানেই যাচাই করা হবে এবং এই প্রক্রিয়ায় এক বছর বা তারও বেশি সময় লাগতে পারে।

ফয়সালের মা-বাবা আমেরিকান-ইসলামিক সম্পর্কবিষয়ক কাউন্সিলের এক বিবৃতিতে বলেন, ফয়সাল পরিবারে ‘প্রিন্স’ নামে পরিচিত, সে তাদের একমাত্র সন্তান। তাকে কখনও সহিংস হতে দেখা যায়নি এবং এর আগে কখনও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সঙ্গে কোনোভাবে জড়িত হতে হয়নি তাকে।

কেমব্রিজের বাসিন্দারা জানান, আমরা সম্পূর্ণরূপে বিধ্বস্ত এবং বিশ্বাসই হচ্ছে না যে আমাদের ছেলে চলে গেছে। প্রিন্স ছিলেন বিস্ময়কর, মায়াময়, যত্নশীল, উদার, সহায়ক ও অত্যন্ত পরিবারকেন্দ্রিক একজন মানুষ।

কেমব্রিজের মেয়র সুম্বুল সিদ্দিকী, সিটি ম্যানেজার ই-আন হুয়াং, মিডলসেক্স জেলার অ্যাটর্নি মারিয়ান রায়ান ও কেমব্রিজ পুলিশ কমিশনার ক্রিস্টিন এলো- সকলেই বৃহস্পতিবার এই ঘটনায় আলোচনা করতে এবং জনসাধারণের প্রশ্নের উত্তর দিতে একটি কমিউনিটি মিটিংয়ে যোগ দেবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

তবে, গুলি চালানো অফিসারের নাম প্রকাশ করেনি কর্তৃপক্ষ।

পুলিশের মুখপাত্র জেরেমি ওয়ার্নিক সোমবার বলেন, বেতনভুক্ত প্রশাসনিক ছুটিতে থাকা ওই কর্মকর্তার ওই বিভাগে সাত বছর কাজের অভিজ্ঞতা রয়েছে। এর আগে কখনও তার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগের বিষয় ঘটেনি।

প্রাথমিক তদন্ত অনুসারে, বুধবার বিকালে পুলিশ একজন বাসিন্দার কাছ থেকে ৯১১-এ কল পায়।

তিনি পুলিশকে জানান, এক ব্যক্তিকে একটি অ্যাপার্টমেন্টের জানালা থেকে ছুরি নিয়ে লাফ দিতে দেখা যায়।

পরে অফিসার ও প্যারামেডিকরা ফয়সালকে রক্তাক্ত অবস্থায় একটি রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখেন।

নয়াশতাব্দী/জেডআই

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আমার এলাকার সংবাদ