ঢাকা, বুধবার, ৪ অক্টোবর ২০২৩, ১৯ আশ্বিন ১৪৩০, ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৫

এবার স্পোর্টস ক্যালেন্ডার আনছে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়

প্রকাশনার সময়: ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ২১:১৯

শিক্ষা, গবেষণা, উন্নয়ন মটোকে সামনে রেখে দুর্বার গতিতে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় এগিয়ে চললেও পশ্চাৎগামী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের শারীরিক শিক্ষা দপ্তর। বিগত ৬ বছরে দপ্তরটির থলিতে পুরস্কার হিসেবে নেই কোনো অর্জন। ২০১৭ সালের আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় ভলিবলে তৃতীয় স্থান অর্জনের পর এখন অবধি দপ্তরটি পায়নি কোনো পুরস্কারের ছোঁয়া। দপ্তটির নেই কোনো মাসিক ও বার্ষিক পরিকল্পনা। দপ্তরটির বিরুদ্ধে রয়েছে অদক্ষতা, খেলোয়াড় নির্বাচনে নেপোটিজম, পরিকল্পনার অভাব, গতিহীনতা ও প্রতিদিন খেলোয়ারদের চর্চা না করানোর মতো অসংখ্য অভিযোগ।

৬ বছরের ব্যর্থতা কাটাতে এবার দপ্তরটিকে দেওয়া হয়েছে জোড়ালো নির্দেশনা। দ্রুততম সময়ে স্পোর্টস ক্যালেন্ডার প্রস্তুত করার নির্দেশনা দিয়েছেন নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. সৌমিত্র শেখর।

মঙ্গলবার (১৯ সেপ্টেম্বর) বার্ষিক সমন্বয় সভায় দপ্তরটিকে এই নির্দেশনা দেন তিনি। নির্দেশনায় যথাসময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক বিভাগগুলোর মধ্যে খেলাধুলা নিয়মিত পরিচালনা করার পাশাপাশি আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় ও জাতীয় পর্যায়ে অংশগ্রহণের লক্ষ্যে কাজ করার কথাও বলেন তিনি।

এছাড়া খেলাধুলার অগ্রগতিতে উপাচার্যের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষে প্রথমবারের মতো নেওয়া হয়েছে বিকেএসপি কোটায় ভর্তি। অনেকেই মনে করছেন খেলাধুলাসহ প্রতিটি ক্ষেত্রে উপাচার্যের এমন সুদক্ষ দিকনির্দেশনা বিশ্ববিদ্যালয়কে অনেক দূর এগিয়ে নেবে।

আইন ও বিচার বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী সানোয়ার রাব্বি প্রমিজ বলেন, চমৎকার, দুর্দান্ত ও যুগোপযোগী সিদ্ধান্ত উপাচার্য মহোদয়ের। একটি ক্যালেন্ডার বা একটি রুটিন কিংবা ডিসিপ্লিন মেইনটেইন ছাড়া কোনো ক্ষেত্রেই সফলতা কামনা হাস্যরসাত্মক বিষয়। হোক সেটা শিক্ষায় কিংবা মাঠের খেলায়। খেলাধুলা এমন একটি ক্ষেত্র যেটায় সহজে সুনাম ছড়িয়ে দেওয়া যায়। খেলাধুলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সফলতা আনার জন্য স্পোর্টস ক্যালেন্ডারের সাথে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা অত্যন্ত জরুরি। ভর্তিতে উপাচার্য মহোদয়ের বিকেএসপি কোটা চালু অত্যন্ত প্রশংসনীয়। খুব দ্রুত নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টসেও সফল হবে বলে বিশ্বাস করি। স্যারের সুদক্ষ দিকনির্দেশনায় নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় অনেক দূর এগিয়ে যাবে।

প্রফেসর ড. সৌমিত্র শেখর বলেন, শিক্ষা, গবেষণা, উন্নয়ন মটোকে সামনে রেখে আমরা এগিয়ে চলেছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি কাজে আমরা এই মটোর প্রতিফলন ঘটাচ্ছি। তারই অংশ হিসেবে খেলাধুলাকে এগিয়ে নিতে ও খেলাধুলার মাধ্যমে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃতিত্ব ছড়িয়ে দিতে শারীরিক শিক্ষা দপ্তরকে দ্রুততম সময়ে স্পোর্টস ক্যালেন্ডার তৈরিসহ যথাযথ সময়ে বাস্তবায়নের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। আমরা আজ এই দপ্তরে আরও একজনকে যুক্ত করে দিয়েছি। প্রথমবারের মতো আমরা এবার বিকেএসপি কোটায় ভর্তি নিয়েছি। আমি আশা করি, খুব দ্রুত খেলাধুলাসহ প্রতিটি ক্ষেত্রে আমরা ঈর্ষান্বিত সাফল্য দেখতে পাব।

উল্লেখ্য, ইতোমধ্যেই নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষা, গবেষণা ও উন্নয়নে অভূতপূর্ব সাফল্য নিয়ে এসেছে। সম্প্রতি প্রকাশিত বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের ৪৬টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২২-২৩ অর্থ বছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি ইউজিসির এপিএ মূল্যায়নে বিশ্ববিদ্যালয় ১৪তম স্থান অর্জন করেছে। গত বছর এই স্থান ছিল ২৫। গবেষণা বেড়েছে পূর্বের তুলনায় দ্বিগুণেরও বেশি। ২০২৩ সালের ৩০ জুন প্রকাশিত এডি সায়েন্টিফিক ইনডেক্স ২০২৩ তালিকায় জায়গা করে নিয়েছেন নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩১ জন গবেষক। ২০২২ সালে এই সংখ্যা ছিল ১৪ জন ও ২০২১ সালে ছিল ৩ জন। এছাড়া অবকাঠামো উন্নয়নের অংশ হিসেবে একইসাথে চলমান রয়েছে ২৪টি উন্নয়ন প্রকল্প।

নয়া শতাব্দী/এফআই

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আমার এলাকার সংবাদ