রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

করতোয়ায় একে অন্যকে জড়িয়ে বাঁচার আকুতি 

প্রকাশনার সময়: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:৩৪

শারদীয় দুর্গোৎসবের আগে মহালয়ায় পুণ্য অর্জনের জন্য রোববার পঞ্চগড়ের বোদা, পাঁচপীর, মাড়েয়া, ব্যাঙহারি এলাকার সনাতন ধর্মাবলম্বীরা নৌকায় করে করোতোয়া নদী পাড়ি দিয়ে বদেশ্বরী মন্দিরে যাচ্ছিলেন। ধারণ ক্ষমতার দ্বিগুণের বেশি যাত্রী নেয়ার কারণে নৌকাটি মাঝ নদীতে ডুবে যায়। এ সময় কিছু মানুষ সাঁতরে নদীর তীরে আসলেও ডুবে মারা যান অনেকেই।

সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সকাল পর্যন্ত ৩০ জনের মরদেহ উদ্ধার হলেও নিখোঁজ রয়েছেন আরো অনেকে। অতিরিক্ত যাত্রীর চাপেই নৌকাটি ডুবে যায় বলে জানান বেঁচে ফেরা যাত্রীরা।

এদিকে নৌকা থেকে বেঁচে ফেরা সুবাস চন্দ্র রায় নামে এক যাত্রী ওই ভয়াবহ সময়ের বর্ণনা দিয়েছেন। তিনি বলেন, আমিও নৌকায় ছিলাম। নৌকায় দেড় শতাধিক যাত্রী ছিল। আমরা নৌকায় ওঠার পরপরই পানি ঢুকতে শুরু করে। এ সময় লোকজন নৌকার মধ্যেই হুড়োহুড়ি শুরু করে। পরে যে পাশেই যাচ্ছিলাম, সে পাশেই নৌকায় পানি ঢুকছিল। আমরা পাঁচজন বন্ধু ছিলাম। কোনোমতে সাঁতরে প্রাণে বেঁচে যাই। অন্য যাত্রীরা একে অন্যকে জড়িয়ে ধরে বাঁচার আকুতি করছিল। ওই মুহূর্তের অবস্থা বর্ণনা করার মতো না। তবে এত মানুষ মারা যাবে, তা বুঝতে পারিনি।

নৌকাডুবির পর সাঁতরে নদীর তীরে ফিরে আসা দিপু বলেন, আমরা মহালয়া দেখার জন্য যাচ্ছিলাম। নদীর মাঝখানে যাওয়ার পর হঠাৎ করে নৌকা দুলতে থাকে। তারপর আমি নিচে পড়ে যাই। কিছুক্ষণ আমি কিছুই বুঝতে পারিনি। তারপর সাঁতার কাটলাম। আমি আমার নিজ হাতে তিনটা মরদেহ উদ্ধার করেছি। আরো কয়েকজনকে বাঁচিয়েছি। বেশি লোক নৌকায় নেয়ায় নৌকাটি ডুবে যায়।

আরেক যাত্রী তুরেণ বলেন, নতুন করে জীবন ফিরে পেয়েছি। নৌকাওয়ালা অতিরিক্ত লোক নেয়ার কারণে এতগুলো মানুষের প্রাণ গেল।। আমার বেশ কয়েকজন আত্মীয় এখনো খুঁজে পাইনি।

এদিকে রাতের বিরতির পর নিখোঁজদের সন্ধানে সোমবার সকাল থেকে আবারো উদ্ধার অভিযান শুরু করেছে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ডুবুরি দল। নদীতে তখন স্রোতের তীব্রতা। সবার চোখ ডুবুরি দলের নৌকার দিকে। বেলা বাড়ার সাথে সাথে নদীতীরে ভিড় বাড়ছে।

এ ঘটনায় জরুরি তথ্যকেন্দ্র খোলা হয়েছে। তথ্যকেন্দ্রের তথ্য মতে, প্রতিনিয়ত নিখোঁজ ব্যক্তির সংখ্যা বাড়ছে। সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী এখনও ৬৫ জন নিখোঁজ রয়েছেন বলে জানা গেছে। এছাড়া দুর্ঘটনায় মৃত ২৫ জনের নাম ও পরিচয় জানানো হয়েছে। এদের মধ্যে ১২ নারী, আট শিশু ও পাঁচ পুরুষ রয়েছেন। তাদের বাড়ি পঞ্চগড় জেলার বোদা, দেবীগঞ্জ ও ঠাকুরগাঁও জেলায়।

উল্লেখ্য, রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলার বদ্বেশ্বরী মন্দিরে মহালয়া উৎসবে যোগ দিতে নৌকায় করে যাচ্ছিলেনে দেড় শতাধিক সনাতন ধর্মালম্বী। অতিরিক্ত যাত্রীর বহন করায় নৌকাটি করতোয়া নদী আওলিয়াঘাট এলাকায় ডুবে যায়।

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আমার এলাকার সংবাদ