ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

ভুল অপারেশনে রোগীর মৃত্যু, ক্লিনিকে তালা

প্রকাশনার সময়: ১১ জুলাই ২০২২, ১৭:১২

রাজবাড়ী শহরের সজ্জনকান্দা বড়পুল এলাকার ডা: রতন ক্লিনিকে গত ৮জুলাই জুলাই রাতে চিকিৎসকের ভুল অপারেশনে ফিরোজ কাজী (৪৫) নামে এক শ্রমিকের মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে।এ ব্যাপারে মৃত রোগীর স্ত্রী বাদী হয়ে ক্লিনিকের মালিক-ডাক্তারসহ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, রাজবাড়ী সদর উপজেলার মিজানপুর ইউপির কালিনগর গ্রামের ফিরোজ কাজী রাজবাড়ী ফল বাজারে শ্রমিকের কাজ করতেন। কয়েকদিন ধরে জ্বর ও টনসিল সমস্যায় ভুগছিলেন তিনি। তাকে প্রথমে স্থানীয় পল্লী চিকিৎসকের কাছে চিকিৎসা করানো হয়। ভালো না হলে গত ৮ জুলাই দুপুরে তাকে সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানকার চিকিৎসক তাকে সজ্জনকান্দা পাবলিক হেলথ অফিস এলাকার ডক্টরস কেয়ারে নিয়ে যাওয়ার পরাদর্শ দেন। সেই মোতাবেক পরিবারের সদস্যরা তাকে ডক্টরস কেয়ারে নিয়ে নাক-কান ও গলা রোগ বিশেষজ্ঞ ডা: মো: হাসান আলী (বিএমডিসি রেজিঃ নং-এ ৬৭০৭৪)কে দেখান। তিনি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ফিরোজ কাজীর টনসিল অপারেশন করার পরামর্শ দেন। ১৫ হাজার টাকায় মিটিয়ে বড়পুলের ডা: রতন ক্লিনিকে টনসিল অপারেশন করার কথা জানান। এতে রাজি হয়ে ফিরোজ কাজীকে সেখানে নেয়া হয়। সন্ধ্যা ৭টার দিকে তাকে অপারেশন থিয়েটারে ঢুকানো হয়। রাত সাড়ে ৯টার দিকে ডা: মো: হাসান আলী অপারেশন থিয়েটার থেকে বের হয়ে রোগীর অবস্থা ভালো না বলে জানিয়ে ঢাকায় নেয়া লাগবে বলে জানান। তার কথা-বার্তায় ফিরোজ কাজীর স্বজনদের সন্দেহ হলে তারা তাকে দেখতে চান। রাত ১১টা পর্যন্ত অপারেশন থিয়েটার থেকে বের না করা হলে তারা জোর করে অপারেশন থিয়েটারের ভেতরে প্রবেশ করে। তখন তারা দেখেন ফিরোজ কাজী বেঁচে নেই। এসময় ক্লিনিকের লোকজন কৌশলে একে একে পালিয়ে যায়।

ওই ক্লিনিকের স্টাফরা জানান, অপারেশন থিয়েটারে ডা: মো: হাসান আলী সাথে এনেস্থসিয়া চিকিৎসক হিসেবে অবসরপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা: মো: আব্দুর রহিম বক্স রোগী ফিরোজ কাজীকে অজ্ঞান করেন। রোগীর স্বজনরা ক্লিনিকের ম্যানেজারের কাছে মৃত্যুর কারণ জানতে চাইলে সদুত্তোর দিতে না পারায় তাকে মারধর করেন। এ ঘটনার পর চিকিৎসক-সেবিকাসহ ক্লিনিকের দায়িত্বরত সবাই পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ এসে নিরাপত্তার কারণে ক্লিনিকটি তালাবদ্ধ করে দেয়। সেখানে ভর্তি থাকা রোগীদের অন্য হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

ডাক্তার রতন ক্লিনিকের ম্যানেজার আমজাদ হোসেন জানান, অপারেশনে রোগী মরতেই পারে। আল্লাহ না চাইলে কারো বাঁচানো সম্ভব না।

রতন ক্লিনিকের মালিক ডা: রইসউল ইসলাম রতনের মোবাইল ফোনে কথা বলার চেষ্টা করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি।

রাজবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: শাহাদত হোসেন জানান, ওইদিন আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে ক্লিনিক তালাবদ্ধ করে রাখা হয়েছে। রোগীমৃত্যু ঘটনায় সোমবার (১১ জুলাই) মামলা রেকর্ডসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

নয়া শতাব্দী/জেআই

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আমার এলাকার সংবাদ