ঢাকা, শনিবার, ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯, ১২ রজব ১৪৪৪

রায়পুরায় ট্রেনের ধাক্কায় প্রাণ গেল দুই প্রতিবন্ধীর

প্রকাশনার সময়: ২৪ জানুয়ারি ২০২৩, ১৯:৪৫

নরসিংদীর রায়পুরায় পৃথক স্থানে ট্রেনের ধাক্কায় দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে আটটায় উপজেলার কড়ইতলা রেলক্রসিং এলাকায় একজন, দুপুরে শ্রীনিধি রেলওয়ে স্টেশন আউটার এলাকায় অপরজনের মৃত্যু হয়।

নিহতরা হলেন, রায়পুরার মির্জাপুর ইউনিয়নের গুচ্ছ গ্রামের সিদ্দিক মিয়ার ছেলে শ্রবণ প্রতিবন্ধী কাশেম মিয়া (৬৫)। তিনি পেশায় একজন শ্যালোমেশিন মেকানিক। অপরজন চান্দেরকান্দি ইউনিয়নের কড়ইতলা গ্রামের সুচেন্দ্র বিশ্বাসের ছেলে কর্ণ বিশ্বাস (৬২)।

স্থানীয়রা জানায়, মঙ্গলবার আনুমানিক বেলা সাড়ে আটটার দিকে শ্রবণ প্রতিবন্ধী কাশেম মিয়া উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের সাধুনগর গ্রামের পাশে থাকা রেললাইন ধরে হাঁটছিলেন। এসময় পেছন থেকে আসা ঢাকামুখী এগারোসিন্ধুর এক্সপ্রেস ট্রেন তাকে ধাক্কা দিলে সে রেললাইনের পাশে ছিটকে পড়ে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়।

অপর দিকে কর্ণ বিশ্বাস দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে শ্রীনিধি রেলস্টেশনের পশ্চিম পাশে আউটারে পাশ দিয়ে রেল পাড় হতে গেলে চট্রগ্রাম অভিমুখী কর্নফুলী এক্সপ্রেসের ধাক্কায় রেললাইনের পাশে ছিটকে পড়ে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

নিহত কাসেম মিয়ার স্বজন বৃদ্ধা ফজিলা বলেন, নিহত কাসেম সকালে বাড়ি থেকে বের হন। রেললাইন ধরে হেঁটে সাপমারা এলাকায় কাজের পাওনা টাকা আনতে যাচ্ছিলেন। উভয় লাইনে একই সময় দুটো ট্রেন যাচ্ছিল। পেছন থেকে ট্রেন তাকে ধাক্কা দিয়ে রেললাইনের পাশে ফেলে দেয়। ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে বাড়ি নিয়ে এসে দাফন সম্পূর্ণ করা হয়।

নিহত কর্ণ বিশ্বাসের ছেলে তাপস বিশ্বাস বলেন, দুপুরে শ্রীনিধি রেলস্টেশনের পাশে বাবা ট্রেনের ধাক্কায় নিহত হওয়ার সংবাদ পেয়ে বাড়িতে নিয়ে আসি। বাবা মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন। যখন যে দিকে ইচ্ছে চলে যেতেন। ধারণা করা হচ্ছে মেয়ের বাড়ি উত্তর বাখরের দিকে যাচ্ছিলেন। মৃতদেহ দাহ্যের প্রস্তুতি নিচ্ছি।

ভৈরব রেলওয়ে পুলিশের উপপরিদর্শক হাসানুজ্জামান রুমেল বলেন, সাংবাদিকদের মাধ্যমে এ বিষয়ে খবর পেয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। খোঁজ-খবর নেয়ার চেষ্টা করছি।

নয়া শতাব্দী/আরআর

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আমার এলাকার সংবাদ